রাত ৪:২৯, ২৭শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

সবজি বিক্রি হচ্ছে চড়া মূল্যে, মাছ-মুরগির দাম সহনীয়

ডেস্ক রিপোর্ট : শুক্রবার (২৫ সেপ্টেম্বর) সকালে পলাশি, নিউমার্কেট, মগবাজার ও কারওয়ান বাজারের কাঁচা বাজার ঘুরে দেখা গেছে পাইকারি বাজারে কাঁচা পন্যের দাম বেশি। সাধারণ বাজারগুলোতেও কাঁচা সবজির দাম অতিরিক্ত।

যার করণে বাজারে এসে নিত্য প্রয়োজনীয় কাঁচা বাজার করতে হিমসিম খেতে হচ্ছে নগরবাসীর। তবে বাজারে সবজির আমদানি প্রচুর। তারপরও বিভিন্ন অযুহাতে বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে সবজি।

পাইকারি বাজারের চাইতে খুচরা বাজারে ১০-২০ টাকা পর্যন্ত বেশি দিয়ে কিনতে হচ্ছে সবজি। মগবাজার, পলাশি, নিউ মার্কেটে কাঁচা মরিচ ১৮০, করোলা ৮০, গাজর ৯০, টমেটু ১২০, পটল ৬০, বরবটি ৬০-৭০, বেগুন ৮০, কাকরোল ৭০, লতি ৬০, মূলা ৬০, উস্তা ৬০, পেপে ৫০, ঢেড়শ ৬০, মরিচ ১৪০ টাকা করে কেজি প্রতি বিক্রি হচ্ছে।

সাইজ ভেদে লাউজ বিক্রি হচ্ছে ৬০-৮০, কুমড়া বিক্রি হচ্ছে ৬০-৮০ টাকা করে। প্রতি হালি কাঁচ কলা বিক্রি হচ্ছে ৩০-৪০ টাকা করে। তবে এখনো দাম বৃদ্ধি পায়নি পেঁয়াজের। বিক্রি হচ্ছে প্রতিকেজি ৩৬ টাকা করে। শাকের দামও কিছুটা বৃদ্ধি পেয়েছে। পুই শাক ৪০, লাল শাক ৩০, লাউ শাক ৫০, ডাটা শাক ৪০ টাকা করে বিক্রি হচ্ছে।

এক থেকে দেড় কেজির ইলিশ মাছ বিক্রি হয়েছে ৮০০-১০০০ টাকায়। ৬০০-৭০০ গ্রাম ইলিশি মাছ বিক্রি হয়েছে ৬০০ টাকা করে। ছোট সাইজের দেশি কোই বিক্রি হয়েছে ২০০ টাকা করে। শিং মাছ প্রতিকেজি বিক্রি হয়েছে ২০০-২২০ টাকায়। পুটি মাছ ১ কেজি বিক্রি হচ্ছে ১০০ টাকায়। এছাড়া অন্যান্য মাছের দামও ছিলো তুলনামূলক কম দাম।

এদিকে চালের দাম গত দুই সপ্তাহ ধরে বেশি। মিনিকেট পুরান ৫৫/৫৬ আর নতুন ৫২/৫৪ টাকা করে বিক্রি হচ্ছে। অন্যান্য চালের দামও আগের বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে।